রাজ্যের ২২টি জেলার মধ্যে ২২টি করোনা হাসপাতাল, উত্তর 24 পরগনায় 31টি কোয়ারানটাইন সেন্টার

0
48

ভারতের প্রতিটি রাজ্যের প্রতিটি জেলায় যেভাবে করোনা সংক্রমণ ছড়াচ্ছে, সেই অনুযায়ী করোনা হাসপাতাল নেই সব জায়গায়।  এই সমস্ত সমস্যার মোকাবিলা করতেই এবার এক নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত নিল পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকার। রাজ্যের ২২টি জেলার মধ্যে ২২টি ‘ডেডিকেটেড’ নোভেল করোনা হাসপাতাল প্রস্তুত করার নির্দেশ দিয়েছে মমতা সরকার। ইতিমধ্যেই আলাদা আলাদা ভাবে প্রতিটি জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের কাছে নির্দেশ পাঠানো হয়েছে। কেন্দ্র থেকে করোনা পরীক্ষার কিট অনেক আগেই এসে পৌঁছেছিল।

কোরোনা মোকাবিলায় উত্তর 24 পরগনায় 31টি কোয়ারানটাইন সেন্টার খুলল জেলা প্রশাসন ৷ করোনা সন্দেহভাজনদের জন্য চিকিৎসা ও খাবারের ব্যবস্থা থাকবে সেখানে । জেলার বিভিন্ন প্রান্তে তৈরি করা হচ্ছে একাধিক কোয়ারানটাইন সেন্টার । জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা খবর, পাঁচটি মহকুমায় তৈরি হচ্ছে 31 টি সেন্টার । সেই 31 টি সেন্টারে থাকবে মোট 1107টি বেড । যুদ্ধকালীন তৎপরতায় তৈরি করা হচ্ছে সেন্টারগুলি ।উত্তর 24 পরগনার জেলাশাসক চৈতালি চক্রবর্তী জানান, “রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের নির্দেশে কোরোনা ভাইরাসের সংক্রমণের জেরে জেলার বিভিন্ন প্রান্তে 31টি কোয়ারানটাইন সেন্টার তৈরির প্রস্তুতি চলছে । দ্রুত সেগুলি চালু করা হবে ।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, বসিরহাট মহকুমার বদরতলা – 13 টি বেড, মেরুদণ্ডী – 50 টি, শিবহাটি – 10 টি, ইটিন্ডা,পানিতর – 25 টি, চারঘাট – 20 টি, বাদুড়িয়া – 20 টি, মুরারি শাহ হাট- 20 টি, চৈতল – 14 টি, খাসবালান্দা – 40 টি, কালীনগর – 30 টি, খুলনা – 15 টি, সান্ডেলবিল – 10 টি । বারাসাত মহকুমার আমডাঙায়- 50 টি, শাসনে – 20 টি, মামুদপুরে – 30 টি, কুমড়ায় – 40 টি, দেগঙ্গায় – 50 টি, কলসুরে – 20 টি, চৌরাশিতে – 20 টি, বিড়াতে – 50 টি, কোটরায় – 40 টি, রাজারহাটে – 32 টি, রঘুনাথপুরে – 25 টি ।বনগাঁ মহকুমার গোপালনগরে – 40 টি, বাগদায় – 70টিব্যারাকপুর মহকুমার শিউলিতে – 40 টি, নৈহাটি স্টেডিয়ামে – 100 টি, খড়দাহ স্টেডিয়ামে – 30 টি, টিটাগড় স্টেডিয়ামে – 100 টি, বেড করার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে । প্রশাসন সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, ভবিষ্যতে প্রয়োজন হলে আরও কোয়ারানটাইন ওয়ার্ডের ব্যবস্থা করা হবে ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here